বোতলের জল সম্ভবত গত শতকের সবচেয়ে মহান বিপণন কৌশলগুলির মধ্যে অন্যতম। বিজ্ঞাপন আমাদের বলে যে, তাদের জল অধিক স্বাস্থ্যকর, সুস্বাদু, এবং আরও অনেক সন্দেহজনক উপকারিতার ঊর্ধ্বে। বিজ্ঞাপনের সুবাদে আমরা জানি না যে, ঝরনার জল কিনতে হবে, নাকি মিনারেল ওয়াটার বা সাধারণ বোতলের পানীয় জল কিনতে হবে।

ম্যানিপুলেশন কীভাবে কাজ করে?

কলের জল এবং বোতলের জলের জন্য বাজারটি গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক স্বার্থের সঙ্গে বিশ্বের বড় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রতিযোগিতা করবে। এইটি প্রায়ই নাগরিক, যারা কোনটা সত্য আর কোনটা মিথ্যাসেটা আর জানে না, তাদের জন্য একটি ভুল তথ্যের লড়াইয়ে গিয়ে শেষ হয়। এছাড়াও, আমাদের পরিবেশগত প্রভাব বিবেচনা করতে হবে।

যেসব দেশে সবচেয়ে বেশি বোতলের জল ভোগ করা হয়, সেখানেই ভাল পানীয় জল সহজলভ্য রয়েছে, এটাই হল সবচেয়ে বড় অসঙ্গতি। এই গ্রাহকরা কলের জলকে বিশ্বাস করেন না, যদিও এর কোনো ন্যায্য প্রমাণ নেই।

কিছু জায়গার কলের জলের স্বাদ এর একটি কারণ হতে পারে। কিন্তু এই যুক্তিতর্কটি গ্রহণযোগ্য নয়, যদি কিনা আমরা বোতলের জলের উচ্চ অর্থনৈতিক ও পরিবেশগত খরচের কথা বিবেচনা করি। এছাড়াও, কিছু ব্লাইন্ড টেস্টিং গবেষণায় দেখা যায় যে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, আমরা কলের জল ও বোতলের জলের মধ্যে পার্থক্যকে বলতে পারি না

কখনও কখনও কিছু জায়গার কলের জলের “খারাপ” স্বাদ সেই জায়গার ভূতাত্ত্বিক কারণে হয়। শোধন করার আগে জল ভিন্ন স্তরের মধ্য দিয়ে যায়, যেমন জিপসিফেরাস এবং লবণাক্ত মাটি, তার সঙ্গে কঠিনতা বা ক্লোরিনের পরিমাণ। এই স্বাদকে কখনই স্বাস্থ্যের বিপত্তির সাথে সংমিশ্রণ করা উচিৎ নয়। পানীয় জল কঠোর নিয়ম এবং নিয়ন্ত্রণ সাপেক্ষ। এটি কখনই EU বা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)-এর মত বিশ্ব সংস্থাগুলির স্থাপিত নিরাপত্তা মাত্রা অতিক্রম করে না। পানীয় জল সবচেয়ে নিয়ন্ত্রিত খাদ্যপণ্যগুলির মধ্যে অন্যতম

দূষণ এবং প্লাস্টিক

কলের জলের সবচেয়ে বড় শত্রু যদি স্বাদ হয়, তবে বোতলের জলের সবচেয়ে বড় শত্রু হল দূষণ। আমরা সারা বিশ্ব জুড়ে তৈরী হওয়া প্লাস্টিকের পরিমাণ সম্পর্কে অবগত নই। এর একটি উল্লেখযোগ্য অংশ হল বোতলের জলের কারণে। আমরা হয়তো ভাবতে পারি যে, প্লাস্টিক রিসাইকেল করাই যথেষ্ট, কিন্তু প্লাস্টিক অনন্তকাল ধরে (কাঁচ বা অ্যালুমিনিয়ামের মত) রিসাইকেল করা যায় না । আমাদের এটাও অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে রিসাইকেল করার ফলে শক্তি খরচ এবং দূষণ হয়। এই কারণে, আদর্শ পরিস্থিতি হল প্লাস্টিকের ব্যবহার ন্যুনতম পর্যায়ে হ্রাস করা।

যে দেশগুলিতে পানীয় জলের সরবরাহ সুলভ হওয়ার সৌভাগ্য রয়েছে সেই দেশগুলিতেই বোতলের জলের গ্রাহকদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

QatiumIntelligent Assistant (বুধিমান সহায়ককারী)

প্লাস্টিক উৎপাদনের ব্যাপক দূষণ

একটি প্লাস্টিক বোতল উৎপাদনে পেট্রোলিয়াম (কাঁচামাল ও শক্তি হিসেবে) ও তার সাথে সাথে অন্যান্য জীবাশ্ম জ্বালানি খরচ হয়,, কিন্তু এটি জলও খরচ করে (প্রতিটি পাত্রের জন্য .26 থেকে .52 গ্যালন)। আর এই সকলের শেষে, আমাদের অবশ্যই পরিবহন ও বিতরণের জন্য খরচ হওয়া সম্পদও বিবেচনা করতে হবে।

অন্য দিকে, আমরা কলের জলের বিশাল পরিবহন ক্ষমতার বিতরণ নেটওয়ার্কের মূল্য দিই না, যা ন্যুনতম শক্তি খরচ করে প্রচুর পরিমাণে জল পরিবহন করে।

জলের-কল

কলের জল

বোতলের জলের দামও আরেকটি খারাপ দিক। তবে, অনেক গ্রাহক, কলের জলের চেয়ে বোতলের জলের জন্য বেশি দাম দিতে দ্বিধাবোধ করেন না। বোতলের জলের দাম দেখে কম বলে মনে হতে পারে, কিন্তু একটি সাধারণ আকারের পরিবারের জন্য, তা এক বছরে কয়েক হাজার ডলারে পৌঁছাতে পারে। অদ্ভুতভাবে, কর প্রদান করার আগে এক লিটার গ্যাসোলিন, 0.26 গ্যালনের কিছু বোতলের জলের চেয়েও সস্তা

করের কথা বলতে গেলে, বলতে হয় যে, প্রশ্নটা হল বোতলের জল (ও সাধারণভাবে সব প্লাস্টিকের প্যাকেজ)-কে সুপরিচিত কার্বন ট্যাক্সের সাথে কর দেওয়া উচিৎ কিনা। অনেক দেশই এই কর ইতিমধ্যে অন্য কোন ভোগ্য পণ্যে প্রয়োগ করেছে।

অবশেষে, কলের জল ও বোতলের জল আমাদের বিশ্বের আরেকটি মহান প্রতিদ্বন্দীতে পরিণত হতে পারে, যেমন-ম্যাক না পিসি? ম্যারাদোনা না পেলে? ক্যাচাপ না মেয়ো? দুর্ভাগ্যবশত, একটি ভাল বিপণন প্রচারণা বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীদের চেয়েও বেশি বিশ্বাসের হয়ে উঠতে পারে