গত শতকে, আমাদের উদ্বেগ ছিল যে, একটি নতুন ধরণের নবায়নযোগ্য শক্তি খুঁজে বের করার আগেই জীবাশ্ম জ্বালানি হয়ত নিঃশেষিত হয়ে যাবে। বর্তমান শতকে, প্রধান উদ্বেগ হল, জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে যুক্ত পরিবেশগত প্রভাব, যেমন জলের ঘাটতি।

এই গ্রহের দশজন লোকের মধ্যে প্রায় একজন-প্রায় 800 মিলিয়ন-এর কাছে নিরাপদ জলের উৎস সহজলভ্য নয়। জনতাত্ত্বিক বৃদ্ধি এবং জলবায়ু পরিবর্তনের পরিণামগুলি যেন একটি টাইম বোমার মতো। এটি জল ব্যবহার এবং ব্যবস্থাপনাকে ঘিরে আরও বেশি সংঘাত সৃষ্টি করবে।

বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলি আনুমানিক হিসাব করে যে, 2030 সালের মধ্যে চাহিদা 40% বেশি হবে। দুর্ভাগ্যবশত, এই গ্রহটি তা সরবরাহ করতে সক্ষম হবে না। এর ফলে কৃষিকাজ প্রভাবিত হবে, এইরূপে খাবারের দামও বাড়বে

জল-চাপ-বিশ্ব-দেশ

এই ধরনের সমস্যা আরও বড় সমস্যা তৈরি করবে, যেমন বিশ্বব্যাপী জলের ঘাটতি। UN Sustainable Development Goals (জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য, SDG) (2015-2030)-এ সম্মত হওয়া প্রতিশ্রুতিগুলি জলের সমস্যার উপর দারুণ গুরুত্ব প্রদান করে। এছাড়াও, বর্তমান COVID-19 মহামারী (2020) সংক্রমণ প্রতিরোধে জলের গুরুত্ব প্রদর্শন করে।

2030 সালে জলের চাহিদা 40% বেড়ে যাবে এবং এই গ্রহ তা সরবরাহ করতে পারবে না

QatiumIntelligent Assistant ( বুধিমান সহায়ককারী)

এই সমস্যাটি কোথা থেকে দেখা দিচ্ছে?

পৃথিবীর পৃষ্ঠের প্রায় মাত্র 1% জল শুধুমাত্র পান করার উপযুক্ত। যদিও এই পরিমাণটি কম বলে মনে হয়, কিন্তু তা সম্পূর্ন বিশ্বের জনসংখ্যার জন্য পর্যাপ্ত।

তবে, বাস্তবে দেখা যায় যে, জল সম্পদগুলি সারা গ্রহ জুড়ে সমানভাবে বন্টন করা হয় না। উল্লেখ না করলে নয়, সেইসাথে কিছু মানব আচরণ রয়েছে যা এই সমস্যাকে আরও জটিল করার এবং বাড়িয়ে তোলার প্রবণতাকে প্রদর্শন করে, যেমন:

  • জল সম্পদ ছাড়া কোনো অঞ্চলে বাস করা। এর কারণ হল, এইসব জায়গায় যে অন্য ধরনের সম্পদ থাকে, যেগুলি আমাদের কাছে আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে হয়।
  • বৃহত্তম জল সম্পদ সমন্বিত কিছু অঞ্চল দূষিত করা
  • আমরা যে পর্যন্ত আমাদের জল সম্পদের সীমায় পৌঁছে থাকি এবং অতিক্রম না করি ততক্ষণ জলের সহজলভ্যতা রয়েছে এমন অঞ্চলে বেশি সংখ্যায় বসতি স্থাপন করে চলি।
জল-অভাব-দূষিত-নদী

দূষিত নদ-নদী

কিছু সমাধান

বিশ্ব জুড়ে জলের ঘাটতি রোধ করতে কয়েকটি পদ্ধতি রয়েছে। এখানে মাত্র কয়েকটি উদাহরণের একটি তালিকা দেওয়া হল:

  1. সামাজিক সচেতনতা: আমাদের অবশ্যই বুঝতে হবে যে, কল থেকে আসা জল, ঠিক যেন কোনো জাদুবলে আগত, এবং সীমাবদ্ধ। জল পাওয়ার অধিকার সবারই রয়েছে, কিন্তু দায়িত্ববান হয়ে জল ব্যবহার করাও একটি কর্তব্য।
  2. সরকারী প্রশাসনের দ্বারা জল পরিকাঠামোর রক্ষণাবেক্ষণ এবং সংস্কারে বিনিয়োগ। বেশিরভাগ শহরেই তাদের নেটওয়ার্কের 20%-এর বেশি জায়গায় জল লিক হয়। এই শতাংশ অন্যান্য শহরে হারানো জলের 50%-এর বেশিতে বৃদ্ধি পায়।
  3. লবণ মুক্ত করা জলের আরও বেশি কার্যকর ব্যবহার। তবে, আমাদের এটা মাথায় রাখতে হবে যে, লবণ মুক্ত করা জলের জন্য উল্লেখযোগ্য শক্তি খরচ করার প্রয়োজন এবং এর পরিবেশগত প্রভাবও রয়েছে।
  4. দূষণমুক্ত জলের থেকে পুনুরায় ব্যবহারযোগ্য জলের ব্যবহার খোঁজ করুন। কৃষিকাজ এবং শিল্পে এর দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে, এবং শহর ও গৃহস্থালির ব্যবহারের জন্য এটি বৃদ্ধি পাচ্ছে।

পরিশেষে বলতে গেলে, আমাদের একটি বৈশ্বিক মানসিকতা প্রয়োজন। জীবাশ্ম জ্বালানি ঘাটতির সমস্যা হয়ত ভবিষ্যতে সমাধান করা যেতে পারে, কিন্তু ততদিনে আমরা কি আমাদের জলের উৎসগুলি খালি করে ফেলব? ততক্ষণে কি খুবই দেরী হয়ে যাবে?